ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা করার সূচকে উন্নয়নে সহযোগিতার জন্য অভিনন্দন

November 6, 2019

প্রেস রিলিজ  

ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস  বা সহজে ব্যবসা করার সূচকে উন্নয়নে সহযোগিতার জন্য অভিনন্দন

 

আজ ৬ নভেম্বর, ২০২১৯, বিশ্বব্যাংকের ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস  বা সহজে ব্যবসা করার  সূচক-২০২০ প্রতিবেদনে বাংলাদেশের আটধাপ অগ্রগতির  জন্য সহযোগিতামূলক  বিশেষ অবদান রাখার যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তর (আরজেএসসি),  বাংলাদেশ ব্যাংক, ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড,  বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও  ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড কে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান জনাব মোঃ সিরাজুল ইসলাম।

একটি দেশে ব্যবসা করা কতটা কঠিন কিংবা সহজ প্রতি বছর তারই সূচক তৈরি করে বিশ্বব্যাংক। মে থেকে শুরু করে পরের বছর এপ্রিল মাস পর্যন্ত বাণিজ্য সহজীকরণে সরকারের নেয়া উদ্যোগ বিশ্লেষণ করে এই তালিকা করা হয়। দেয়া হয় পয়েন্ট বা স্কোর। উল্লেখ্য যে,  গত ২৪ অক্টোবর ২০১৯, বিশ্বব্যাংক   ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা করা সূচক- ২০২০ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন থেকে সারা বিশ্বে একযোগে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে আট ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১৯০টি দেশের মধ্যে এখন ১৬৮তম। আট ধাপ অগ্রগতির পাশাপাশি উন্নতিতে সেরা ২০টি দেশের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশ গত বছর বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৭৬তম। ব্যবসা সংশ্লিষ্ট ১০টি পৃথক মানদণ্ডে বিচার করে এই সূচক তৈরি করা হয়।  বিশ্বব্যাংকের সহজে ব্যবসার সূচকে এবারই প্রথম এত বেশি অগ্রগতি হলো বাংলাদেশের। বিশ্বব্যাংকের ‘ইজ অব ডুয়িং বিজনেস’ রিপোর্টে ২০২০ (ব্যবসা করার সূচক) অনুযায়ী এ বছর বাংলাদেশ ১০০ নম্বরে স্কোর করেছে ৪৫।

আজ বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এর কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটির  নির্বাহী চেয়ারম্যান জনবা মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেছেন,   ব্যবসা  কিংবা শিল্প আমাদের দেশের একেকটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র। কারণ আমাদের আরো পরিকাঠামগত উন্নয়ন চাই, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য নিরাপদ কর্মসংস্থান চাই এবং  সেই সাথে  টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে সকলের মাথাপিছু রোজগারও বৃদ্ধি করতে হবে। এই সব কিছু তখনই সম্ভব, যখন দেশে অধিক হারে বিনিয়োগ আসবে। শিল্প এবং ব্যবসা সঠিক লক্ষ্যে যথাযথ গতিতে এগিয়ে চললে সাধারণ মানুষ এর দ্বারা উপকৃত হবেন।  তিনি আরো বলেন, উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানের জন্য আমাদের সকলকে সম্বলিতভাবে  সহযোগিতার মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সেবা দিতে হবে।

তিনি  ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা করা সূচক-২০২০ এর অগ্রগতিতে যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তর (আরজেএসসি),  বাংলাদেশ ব্যাংক, ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড,  বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন    বোর্ড ও  ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড অবদানের কথা তুলে ধরে বলেন ,  “বাণিজ্যিক প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে সবার  অক্লান্ত সহযোগিতার মাধ্যমেই এই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে, আগামীতে এই পথ আরো  প্রশস্ত এবং  গতিশীল হবে”  । তিনি ভবিষ্যতে আরো  বেশি সহযোগিতা কামনা করে  ২০২১ সালের মধ্যে ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা করা সূচকে দুই অংকের ঘরে  প্রবেশের আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।