উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে সৃজনশীল উদ্ভাবনশক্তির কোন বিকল্প নেই

October 14, 2019

উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে সৃজনশীল উদ্ভাবনশক্তির কোন বিকল্প নেই

১৪ অক্টোবর, সোমবার  ২০১৯, ,  আজ বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)-এর  কার্যালয়ে, বিডা –এর আয়োজনে   মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব  জনাব মোঃ নজিবুর রহমান উপস্থিতিতে এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা  (এসডিজি) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জনাব মো. আবুল কালাম আজাদ মহোদয়ের সঞ্চালনায় “Innovation in public service Delivery” এবং “Innovation Culture in Private Sector” বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব  জনাব মোঃ নজিবুর রহমান বলেন “ ২০০৮ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরিত করার কথা ঘোষণা করে। নির্বাচনে বিপুল বিজয় অর্জনের মাধ্যমে  ২০০৯ সালে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ পর্বের সূচনা হয়। তার ই ধারাবাহিকতায় জনগণকে সহজে স্বল্প সময়ে  উন্নত মানের  সেবা প্রদান নিশ্চিত করার  লক্ষ্যে  পাবলিক সেক্টরে নিত্য নতুন উদ্ভাবনের প্রবর্তন করা হয়।  যার ফলে আজ বিভিন্ন  পাবলিক সেক্টরে সহজেই উন্নত মানের  সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে।

মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘একসেস টু ইনফরমেশন’-এর পলিসি এডভাইজার আনির চৌধুরী ইনোভেশনে বিভিন্ন সেক্টেরে  বাংলাদেশের সাফল্যের কথা তুলে ধরে বলেন, কোন শিশুই না পড়ে হাটতে শেখে না সুতরাং কাজ করলে ভুল হবেই আর আর ভুল সংশোধন করে  সেখান থেকেই শিখতে হবে ।  আর আমরা শিখতে পেরেছি বলেই আজ বিশ্বে বাংলাদেশ উদ্ভাবনের দেশ হিসাবে পরিচিত । এ সময়  এসডিজি সূচকে বাংলাদেশের সফলাতার কথা তুলে ধরে তিনি আরো বলেন টেকসই উন্নত ভবিষ্যৎ বিনির্মানে সবার অংশগ্রহণে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে   সৃজনশীল উদ্ভাবনকে মুল চালিকাশক্তিতে পরিণত করতে হবে।

মতবিনিময়কালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ নিউটন হাওয়ার্ড উন্নত বিশ্বে  তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর ইনোভেশনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন ,  এসময় এমসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট  নিহাদ কবির   প্রাইভেট সেক্টরে ইনোভেশনের গুরুত্ব তুলে ধরেন । ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ ফরহাদ আনোয়ার  ও সহকারী অধ্যাপক ডঃ মোস্তাক ইবনে আইয়ুব ইনোভেশনের প্রাতিষ্ঠানিক এবং একাডেমিক দিক নিয়ে আলোচনা করেন।

এছাড়াও আলোচনাসভায় জনাব এন এম জিয়াউল আলম (সিনিয়র সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ), জনাব  শেখ ইউসুফ হারুন (সচিব স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়), জনাব মোঃ আসাদুল ইসলাম (সচিব স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ)  জনাব মোঃ আবদুস সামাদ (সচিব নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়), জনব হেলাল উদ্দিন (সচিব, স্থানীয় সরকার বিভাগ), মোঃ ফারুক হোসেন, পবন চৌধুরী (নির্বাহী চেয়ারম্যান, বেজা),  মোঃ আনোয়ার হোসেন (সচিব অফিস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়),  মানিক মাহমুদ (হেড অফ সোশ্যাল ইনোভেশন কালচার, এ টু আই ), শেখ মুজিবুর রহমান এনডিসি সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার,  মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের ), সাইফুল ইসলাম   (ফোকাস বাংলা) মতবিনিয়ম করেন।

সমাপনী বক্তব্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)-এর  নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে  বলেন, এই পৃথিবী তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর পৃথিবী, তাই  উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে সৃজনশীল উদ্ভাবন শক্তির  কোন বিকল্প নেই, আর  পাবলিক এবং প্রাইভেট সেক্টরের পারস্পারিক  সহযোগিতার মাধ্যমেই তা বাস্তবায়ন সম্ভব।